• Wed. Dec 2nd, 2020

The Love Affair

Get Latest Update

জিভ ছিঁড়ে নিলে’ও প্র’তিবাদ কিন্তু বন্ধ হবে না!

কিন্তু আম’রা কি শেষ প’র্যন্ত শেষ করব না? আ’মরা থামব না? আমা’দের বিকৃ’তকাম পুরু’ষসমাজ দাঁড়িয়ে এ’কটু ভা’ববে না? ক’লকাতার বাস’কন্ডাক্টরেরা যেমন সচ’রাচর বলে থাকেন, ‘পিছ’নের দিকে এগিয়ে যান’, তে’মন করেই কি অন্ধ ভা’বে শুধু পিছ’নের দিকে ‘এ’গিয়ে যাব’! কত পিছ’নে যাব? এ’তটাই পিছনে কি– যে’খানে আদিম কামে’র অগ্নি-জ্বালা’য় পুড়ে খাক হওয়া রক্ত’মাখা অস্ত্র’হাতে আদিম কোনও দু’র্বোধ্য পুরুষ কোনও আ’দিম নারীকে যে-নিষ্প্রাণ শক্তি’মত্তায় গ্রহণ করে, সের’কম কোনও বোবা যাপ’নের গূঢ় ক্লে’দের আঁধারে!

অধ্যা’পক ও মনো’রোগ বি’শিষ্ট ড. ওম’প্রকাশ সিং যেমন একটা গুরুত্ব’পূর্ণ দিকে নজর টেনেছে’ন। তিনি বলছে’ন, ‘মেয়েদের ওপর অ’ত্যাচার তো শু’ধু সেক্স’ নয়। এটা ম্যানিফে’স্টেশন অফ পাও’য়ার। মহি’লাদের ওপর অ’ত্যাচার করে তাঁদের পরিবা’রকেও কখনও ক’খনও শা’স্তি দেওয়া হয়। এবং সেখানে পুরু’ষতান্ত্রিক’তার অন্য’রকম চেহারা ঘা’পটি মেরে থাকে। মে’য়েদের তারা পণ্য হি’সেবে দেখে এবং মনে ক’রে এই পণ্য তার প্রাপ্য। ধ’র্ষণের মধ্যে দিয়ে তারা আস’লে তাদের ওই প্রা’প্যটাই ছি’নিয়ে নেয়।’

কী করি আ’মরা? ক্ষতিপূর’ণ দিই। তদন্ত ক’মিশন বসাই। বিচার’ব্যবস্থারও আয়োজ’ন করি। হ’য়তো শা’স্তিও পায় ধর্ষ’কেরা। কিন্তু তা’রপর। যে-মেয়ে’কে এক’টু-একটু করে বড় করে তু’লছিল বাবা-মা, তাঁদের দ’লাপাকানো বুক ভারী করা অশ্রু’কষ্টের কথা মনে রা’খি? স্বয়ং ভি’ক্টিম যে-মেয়ে’টি নিজের মধ্যে এক’রাশ অমর স্ব’প্নের লাবণ্য লালন কর’তে করতে এ’কটু-একটু করে এই পৃথিবীর’ আলোজল’বা’তাসের মধ্যে মাথা তুলছিল, তার আ’লোকিত অন্তরে’র পবিত্র’তাকে খুঁজি আমরা? না, করি না। পা’রি না। কেননা, আমরা ভুলে যাই। গণস্মৃ’তি এম’নিতেই দুর্বল।

হবে না, ঠিকই। কিন্তু আমা’দের অন্তর কেঁ’পে ওঠে। আমা’দের প্রত্য’কের ঘরেই আছে না ওই হা’থরসের উনিশ, হাউ’স্টনের ষোলো! তা হলে? তা’রা কি ঘরের মধ্যে মুখ লুকি’য়ে বসে থা’কবে! ভয় পাবে! ভয়ে কুঁক’ড়ে গিয়ে আসলে পুরুষ’তন্ত্রের হাত’টাই আরও শ’ক্ত করবে? না, কি প্রতি’বাদ করবে?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *